আজ ৫ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বেহাল সড়কে চরমে জনদূভোর্গ

দীঘিনালা-বাঘাইছড়ির হাজাছড়া সংযোগ সড়ক যানবাহন চলাচলে অউপযোগী

নুরুল আলম::: খাগড়াছড়ি দীঘিনালা উপজেলার ছোটমেরুং বাজার থেকে বাঘাইছড়ি উপজেলার দুরত্ব মাত্র ৬কি.মি। ইটসলিং এই সড়ক পথে কম সময়ে যাতায়াত করা যায়। কিন্তু সম্প্রতি সড়কটির বিভিন্ন জায়গা ভেঙ্গে যাওয়া ফলে যানবাহন চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

এছাড়া আগামী বর্ষার আগে সড়কটি সংস্কার করা না গেলে মরণ ফাঁদে পরিণত হতে চলেছে এ সড়ক। বর্তমানে জনদূভোর্গে চরম আকার ধারন করেছে বেহাল সড়কটি।

সরেজমিনে দিয়ে দেখা যায়, মেরুং ইউনিয়ন থেকে বাঘাইছড়ি উপজেলার যাওয়ার সটকার্ট রাস্তাটি ইটসলিং উঠে গিয়ে মরন ফাঁদে পরিনত হয়েছে ফলে প্রতিনিয়ত ঘটছে দূর্ঘটনা। ৬ কিলোমিটার রাস্তার বেশি ভাগ উচু খাড়া ঢালু হওয়া যান চলাচলে অনুপযেী হয়ে পড়েছে পরায় দ্রুত সংস্কারের দাবী জানিয়েছে স্থানীয়রা।

তথসূত্রে জানাযায়, খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলা সদর থেকে পাকা সড়ক পথে বাঘাইছড়ির দুরত্ব ২৮কি.মি। দীঘিনালা উপজেলার মেরুং ইউনিয়ন থেকে উপজেলা সদরের দুরত্ব ১২ কি. মি.। মেরুং এলাকাবাসী পাকা সড়কে বাঘাইছড়ি পৌছতে পাড়ি দিতে হয় ৪০ কি.মি.। অপরদিকে মেরুং বাজার থেকে ইটসলিং সড়কে বাঘাইছড়ি উপজেলার দুরত্ব মাত্র ৬কি.মি.। কিন্তু এ সড়ক পথে দীর্ঘ দিনেও যাতায়াত হয়নি মাঈনী নদীতে সেতু না থাকায়।

২০২২ সালের মার্চে প্রায় ৫কোটি টাকা ব্যায়ে ছোট মেরুং বাজার এলাকায় মাঈনী নদীর ওপর সেতু নির্মাণ শেষ হলে সড়কটি সচল হয়। এর পর থেকে যান চলাচল বেড়ে যায়। কিন্ত সম্প্রতি ইটসলিং সড়কের বিভিন্ন জায়গায় খানাখন্দের আর বিশাল বিশাল গর্ত সৃষ্টি হওয়ায় সড়কটি যানবাহন চলাচলে ঝুকিঁপূর্ন হয়ে পড়েছে। কয়েক মাস আগে বটতলা নামক এলাকায় জীপ দূর্ঘটনায় একজন নিহত হয়।

স্থানীয় বাসিন্দা মো: আব্দুর রহমান বলেন, বর্তমান সরকার মাইনী নদীর উপরে ব্রীজ তৈরি দিয়ে মেরুংও বাঘাইছড়ি উপজেলা জনগনের স্বপ্ন পূরন করেছে। কিন্তু সংযোগ সড়কে সংস্কার না করার কারনে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করছে। রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের জন্য দাবী করছি।

মেরুং ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোছা: মাহমুদা বেগম লাকী বলেন,বর্তমানে রাস্তটি বেহাল দশা যানবাহন চলা অনুপযেী হয়েছে পড়েছে। মেরুং এলাকায় মাইনী নদীর উপর সেতু হওয়া রাস্তাটি যতদ্রুত সম্ভম ইটসলিং থেকে পাঁকা করা দরকার যাতে করে দীঘিনালা ও বাঘাইছড়ি উপজেলা জনগনের মাঝে সেতুবন্ধন সৃষ্টি হয়। ব্যবসা বানিজ্য প্রসার বাড়বে।

ভাড়ায় মোটর সাইকেল চালক বিজয় চাকমা বলেন, আমি নিয়মিত এই রাস্তায় যাত্রী নিয়ে যাতায়াত করি আগে রাস্তাটি কিছুটা ভালো ছিল। বর্তমানে ভয়ভীতি নিয়ে এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করি। যেকোন সময় বড় ধরনে দূর্ঘনা ঘটতে পারে। রাস্তাটি দ্রুত ইটসলিং থেকে পাঁক করার জন্য সরকারের কাছে দাবী করছি।

Share

এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

You cannot copy content of this page