আজ ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আর নেই সাংবাদিক ড. রেজোয়ান সিদ্দিকী

প্রবীণ সাংবাদিক ড. রেজোয়ান হোসেন সিদ্দিকী।

ডেস্ক রিপাের্ট:: আর নেই সিনিয়র সাংবাদিক ড. রেজোয়ান হোসেন সিদ্দিকী (ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। তিনি দৈনিক দিনকাল-এর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সম্পাদক, ছিলেন। এছাড়া ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সিনিয়র সদস্যসহ বিশিষ্ট কলামিস্ট ছিলেন।

মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারি) রাত সোয়া ১০টায় রাজধানীর শ্যামলির একটি প্রাইভেট হাসপাতালে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন তিনি। দীর্ঘদিন কিডনি সমস্যায় ভুগছিলেন। বুধবার (১৭ জানুয়ারি) বেলা ১২টায় জাতীয় প্রেসক্লাবে সাংবাদিক ড. রেজোয়ান হোসেন সিদ্দিকী জানাজা অনুষ্ঠিত হবে পরে রায়ের বাজার কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হবে বলে জানিয়েছে পারিবারিক সূত্র।

সং‌ক্ষিপ্ত জীবনী: ১৯৫৩ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি ড. রেজোয়ান হোসেন সিদ্দিকীর জন্ম টাঙ্গাঈল জেলার এলাসিন গ্রামে। বাবা মরহুম আতিকুল হোসেন সিদ্দিকী। মা মরহুমা হাওয়া সিদ্দিকী। এসএসসি পাস করেন ১৯৬৮ সালে। বলতে গেলে তার পর থেকেই জীবন সংগ্রাম শুরু। ১৯৬৯ সালে করটিয়ার সা’দত কলেজের ছাত্র থাকা অবস্থায় তার পড়াশোনা আপাত বন্ধ হয়ে যায়। হুলিয়া নিয়ে তিনি চলে যান চট্টগ্রামে তার চাচা মোফাখখর হোসেন সিদ্দিকীর আশ্রয়ে। এরপর রেজোয়ান সিদ্দিকী চলে আসেন ঢাকায়। জীবন সংগ্রামের এক ভিন্ন মাত্রা শুরু হয় তখন থেকেই।

সাংবাদিকতা পেশায় ঢুকেছেন ১৯৭২ সালের ফেব্রুয়ারিতে দৈনিক বাংলায়। প্রুফ রিডার হিসেবে শুরু করেছিলেন। সেখানে শেষে ছিলেন সিনিয়র সহকারী সম্পাদক। একই সাথে ছিলেন ফিচার এডিটর, সিনে সম্পাদক এবং সাহিত্য সম্পাদক। খবরের কাগজে সাংবাদিকতার এমন কোনো পদ নেই, যে পদে কাজ করেননি তিনি। সর্বশেষ দৈনিক দিনকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। প্রেস ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালকের দায়িত্ব পালন করেছেন চার বছর।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছিলেন ১৯৭৩ সালে। ১৯৭২ সাল থেকেই ছোট গল্পকার ও কলাম লেখক হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন রেজোয়ান সিদ্দিকী। লেখাপড়া করেন সাহিত্যে। কিন্তু এইচএসসি পর্যন্ত তিনি ছিলেন বিজ্ঞানের ছাত্র। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই তিনি পিএইচডি অর্জন করেন ১৯৯৫ সালে। হল্যান্ডের আইএসএস (ইনস্টিটিউট অব সোস্যাল স্টাডিজ) থেকে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও উন্নয়ন বিষয়ে তিনি অর্জন করেছেন স্নাতকোত্তর ডিপ্লোমা। লেখক হিসেবে তার চরিত্র সব্যসাচীর। তিনি লিখেছেন, উপন্যাস, গল্প, নাটক, বিজ্ঞান, প্রকৃতি-পরিবেশ, ফিকশন, অনুবাদ, সংকলন-সব কিছু মিলে অর্ধশতাধিক বই।

Share

এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

You cannot copy content of this page