আজ ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

রাঙামাটিতে বহুল আলোচিত “দয়াল চাকমা” প্রতারনা মামলায় গ্রেফতার

ডেস্ক নিউজ:: রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য, একাধিক ইঞ্জিনিয়ার, ঠিকাদারসহ জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ, মামলা দায়েরসহ দুর্নীতি দমন কমিশন দুদকের সমন্বিত কার্যালয়ের উপ-পরিচালকের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করে বহুল আলোচিত ক্ষমতাসীন দলের অন্যতম পরিচিত মুখ বরকলের দয়াল কুমার চাকমাকে গ্রেফতার করেছে রাঙামাটির কোতয়ালী থানা পুলিশ। রোববার দুপুরে রাঙামাটি শহরের দক্ষিণ কালিন্দিপুর এলাকা থেকে এসআই নয়ন কুমার চক্রবর্তীর নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা তাকে গ্রেফতার করে।

জনৈক নিরঞ্জয় চাকমাকে চাকুরি দেয়ার নাম করে চার লাখ টাকা প্রতারনা করে হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে রাঙামাটির আমলী আদালতে দায়ের করা প্রতারনার মামলায় জারিকৃত গ্রেফতারি পরোয়ানামূলে দয়াল কুমার চাকমাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুল আমিন।

আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে রাঙামাটি কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আরিফুল আমিন জানান, দয়াল কুমার চাকমার পিতা মৃত অমূল্য কুমার চাকমা, সে দক্ষিণ কালিন্দিপুরে বসবাস করে। তার বিরুদ্ধে দন্ড বিধি ৪২০/৪০৬ ধারায় প্রতারণা মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে আদালত। মামলার বাদী নিরঞ্জয় চাকমা, সিআর মামলা নং- ৫৪৯/২৩। আটককৃত দয়াল কুমার চাকমাকে রাঙামাটি চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন ওসি।

এই মামলার বাদি নিরঞ্জয় চাকমা জানিয়েছেন, ২০১৯ সালে আমাকে রাঙামাটি জেলা পরিষদের মাধ্যমে স্বাস্থ্য বিভাগে চাকুরি দেওয়ার কথা বলে দয়াল কুমার চাকমা আমার বাসায় এসে আমার কাছ থেকে নগদ চার লাখ টাকা নেয়। পরবর্তীতে আমি চাকুরী প্রাপ্তদের তালিকায় আমার নাম দেখতে নাপেয়ে আমার টাকাগুলো ফেরৎ চাইলে দয়াল কুমার জানায় একটি দলের সাধারণ সম্পাদককে আমার টাকাগুলো দিয়ে দিয়েছে। এরপর আমাকে বারংবার সময় দিয়েও আমার চার লাখ টাকা ফেরত দেয়নি। পরবর্তীতে নিরূপায় হয়েই আমি আমার টাকাগুলো পাওয়ার আশায় আইনের আশ্রয় গ্রহণ করেছি। চলতি মাসেই আদালতে দয়ালের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছি।

এই মামলার আইনজীবি অ্যাডভোকেট রহমত উল্লাহ জানিয়েছেন, আমরা জানতে পেরেছি বিভিন্ন জনের কাছ থেকে চাকুরি দেওয়ার নাম করে বিপুল পরিমান টাকা আত্মসাৎ করেছেন দয়াল কুমার চাকমা। তারপরও আমরা তাকে লিগ্যাল নোটিশের মাধ্যমে একমাসের মধ্যে আমার মক্কেলের সমুদয় টাকা ফেরতদানের জন্য বলেছিলাম কিন্তু তিনি সেটাতে সাড়া দেননি। তাই আমরা রাঙামাটির আমলী আদালতে দয়াল চাকমার বিরুদ্ধে এনআই এক্টে ৪২০/৪০৬ ধারায় মামলা দায়ের করে আসামীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আবেদন জানাই।

আমাদের অভিযোগটি আদালত আমলে নিয়ে আসামীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার আদেশ প্রদান করেছিলেন। তারই ধারাবাহিকতায় রোববার দুপুরে দয়াল কুমার চাকমাকে কোতয়ালী থানা পুলিশ গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করেছে। আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।

Share

এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

You cannot copy content of this page